Author Topic: কিভাবে একটি STARTUP / স্টার্টআপ বা নতুন আইডিয়া নিয়ে বিজনেস শুরু করবেন  (Read 392 times)

Rashadul Islam

  • Administrator
  • Newbie
  • *****
  • Posts: 45
  • Karma: +0/-0
    • View Profile


১। একটি মানে দাড় করান কেন Startup বা উদ্যোগ নেবেন  ……….

আপনার উদ্যোগটি লাভজনক বা অলাভজনক যাই হোক না কেন এটার আসল ঊদ্দেশ্য হয়া উচিত অন্যের ঊপকার বা সমস্যা নিরসন করা । যা দুনিয়াতে একটি ভাল উধাহরণ রেখে যাবে । মানুষ মনে রাখবে ।

বয়স তিরিশ এর আগে শুরু করুন পরে ভুল শুধরে নিতে পারবেন , ৪০ এর ঘরে জীবন বাজি রাখা কঠিন

* আপনার প্রোডাক্ট বা সার্ভিস নিয়ে সাধারণ মানুষের লাভ কি ? এর উত্তর পরিষ্কার হওয়া জরুরী ।
* মানুষের জীবন যাত্রার মান বৃদ্ধি করবে কি ?
* সব কিছু শেষে ভাল জিনিস তাই মানুষ মনে রাখে যা একটা সময় তার উপকার বা মনোযোগ কেড়েছিল ।

২। একটি স্লোগান / মন্ত্র তৈরি করুন ( যেমন নকিয়ার Connecting People )……

সেই মন্ত্র টি যেন মিশন স্টেটমেন্ট এর মত বড় না হয় । যা আপনি বিশ্বাস করবেন । আপনার ক র্মীরাও বিশ্বাস করবে ।
* আপনার উদ্যোগটির উদ্দেশ্যর সাথে মন্ত্রটির মিল থাকতে হবে ।
* মানুষ যেন ২/৩ টি শব্দে আপনাকে বিশ্বাস করে ।
* যত বেশী মানুষ আপনাকে ভরসা করবে আপনার ব্যবসা বাড়তে থাকবে ।

৩। সমস্যা সমাধানে এগিয়ে চলুন…………

* সবার প্রতি ঊদার থাকুন
* কিন্তু সবাইকে আপনি সন্তুষ্ট করতে পারবেন না
* শুরুতে আপনি মাত্র অল্প কিছু ক্রেতা পাবেন তাদের নিয়ে এগিয়ে চলুন ।
* একজন সোলমেট খুজন যে আপনার মত বা আপনার মত দুরদর্শী । বা কিছুটা পাগলাটে !!!
* ওজনিয়ক , পল এলেন, সের্গেই ব্রিন এরা কাদের সোলমেট মনে পড়ে ?

৪। বাস্তব বাদী বিজনেস মডেল দাড় করান…………

* ঢাকায় ৩ মিলিয়ন শিক্ষিত ও স্মার্ট মানুষ আছে ঠিক
* ব্যাতিক্রম কিছু ভাবুন যা দেশে আগে কেউ শুরু করে নি
* কারন এরই ভিতর অনেকই একই কাজটি করছে ।
* আপনার যতই স্মার্ট প্রোগ্রামার , মারকেটিং এক্সপার্ট থাকুক না কেন, অনেক কঠিন হবে কাজ টি
* চাহিদার নিচের দিক থেকে ভাবুন, তাতে খরচ ও আয়ের অনুপাত আগে থেকে অনুমান করতে পারবেন ।
* ব্যবসা করার জন্য আমাদের দেশ উর্বর ভুমি , কারন সব শ্রেনীর মানুষের ক্রয় ক্ষমতা মোটামুটি ।

৫। কাজ, ধারনা, ও মাইলফলক ঠিক করে নিন । ………..

প্রথম দিকের সব স্টার্টআপ কে ৭ টি মাইলফলক ঠিক করা উচিত
* আপনার কনসেপ্ট / আইডিয়া কে প্রমান করুন
* আপনার ডিজাইন দাড় করান
* প্রটোটাইপ দাড় করান
* প্রথমে নিজের পুজি নিয়ে এগিয়ে চলূন , পরে অপরের পুজি নেবেন ব্যবসা শক্ত করার জন্য
* নিজের প্রোডাক্ট বা সার্ভিস বেটা ভার্সন সবাইকে দেখান
* তারপর আসল প্রোডাক্ট বা সার্ভিস অল্প পরিমাণে বিক্রি করবেন ।
* সেলস শুরু হয়ে গেলে কাস্টমার কি চায় ট্র্যাক করা শুরু করুন, তা থেকেই পরের ধাপ বেরিয়ে আসবে ।
* মানুষ আপনাকে বিশ্বাস করলে আপনিও ফল পাবেন ।

৬ আপনার গল্প টি শেয়ার করুন কেন আপনি এটা করছেন …………
* প্রচার পর্বের শুরু তে আপনার গল্প টী শুনে যাতে মানুষ আপনাকে মনে রাখে
* আপনার উদ্যোগ টি যদি আলাদা হয় , মানুষ চেস্টা করবে মনে রাখতে
* কমম্পিটিটর দাঁড়িয়ে গেলেও ভয় পাবেন না
* আপনার প্রচেস্টা কতটা হৃদয়গ্রাহী সেটা মানুষকে বোঝান ।
৭ বিনিয়োগের জন্য রাস্তা খোলা রাখুন , যা প্রেজেন্টেশন এর লক্ষ্য
* সেলস, মার্কেটিং , ব্র্যান্ডিং, ফান্ড রাইজিং, কাস্টমার কেয়ার সব দিকে নজর রাখতে হবে
* ১০/২০/৩০ রুল যা আপনার সব প্রেজেন্টটেশন কে করবে অর্থবহ
* ১০ টি শ্লাইড, ২০ মিনিট, ৩০ ফন্ট সাইজ যা ম্যাজিকের মত কাজ করবে

৮ সেলস অনুযায়ী খরচ করুন ও টিম বিল্ডিং করুন। ………

* নতুন কিছু যোগ করতে গিয়ে সব পুঁজি বিনিয়োগ করবেন না
* যা সেল আসবে তার থেকে খরচ করুন ।
* আপনার সব টিম মেম্বার দক্ষ থাকলেও সেলস ডাটার দিকে পক্ষ নিন
* সেলস সবকিছু ফিক্সড করতে পারে ,
* সেলস যদি নাই থাকে তবে হেভি প্রোগ্রামার ও কাস্টমার কেয়ার কোন কাজে আসবে না
* বুঝে শুনে চলতি বিনিয়োগ করুন ।

৯ ব্যবসার নানা ইনোভেসন এ বিনিয়োগের চিন্তা করুন …….

* বিনিয়োগের সব ডিম এক ঝুড়িতে রাখবেন না
* হয়ত আপনি পাবলিশিং করছেন কিন্তু দেখা গেল ই বুক এর বাজার বেশি
* ফেরত আসার বা রিস্টার্ট করার ঊপায় রাখুন ।
* ব্যাক্তিগত নেটওঅর্ক তৈরি করুন

১০ ওপরের ভাবনায় নিরুৎসাহিত হবেন না ……

* কারন তারা আপনার মত দূরদর্শী নাও হতে পারে
* আপনি কি করবেন না নিয়ে তাদের মাথাব্যাথা নেই ।
* আপনি এটা পারবেন না এর আসল মানে ওরা কেউ হলে পারত না ।
* আপনার চেয়ে অভিজ্ঞ কেউ হলে তার সাবধান বানী মাথায় নিন ।

সব কথার শেষ কথা ব্যবসা শুধু আপনার নিজের জন্য ভাবলে সেটার স্থায়িত্ত বেশি দিন হয় না , কারন নিয়তি পেব্যাক করতে শুরু করে , মনোপলির চিন্তা না করে ইনোভেশন এ নজর দিন ।


Regards,
Md. Rashadul Islam
Operation Manager
Bangladesh Venture Capital Ltd.